শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের সুপারিশ কানাডিয়ান দূতের  » «   সালমান খানের সঙ্গে শাকিব খানের তুলনা করলেন পায়েল  » «   বিশ্বকাপ মিশনে নামার আগে মক্কায় পগবা  » «   সিটি নির্বাচনের প্রচারে এমপিরা কি অংশ নিতে পারবেন?  » «   তালিকা অনুযায়ী সবাইকে ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   আমজাদ হোসেনের জার্মানি পতাকা এবার সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার  » «   ভক্তদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে কক্সবাজার ছাড়লেন প্রিয়াঙ্কা  » «   জাপানে বন্ধুর ক্লাবই নতুন ঠিকানা ইনিয়েস্তার  » «   মুক্তামনির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   ‘ভারত থেকে এক বালতি পানিও আনতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী’-রিজভী  » «   চৌদ্দগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত  » «   জবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতার ওপর হামলা  » «   নারীর মন-শরীর নিয়ন্ত্রণ করে পুরুষ আধিপত্য চায়: বিদ্যা  » «   আখাউড়ায় হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট  » «   ২১ ঘণ্টা রোজা রাখছেন ৪ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান!  » «  

উসকানির পোস্ট রুখতে ফেসবুকে নতুন ফিচার?



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক::অপপ্রচার ছড়ানোর জন্য ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে প্রধান হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে অশুভ চক্র। তারা কোনো উদ্দেশ্যমূলক পোস্ট দিলে বাচ-বিচার ছাড়াই তা শেয়ার করার কারণে উসকানিমূলক পরিস্থিতি তৈরি হয় অনেক সময়। এ ধরনের পরিস্থিতি এড়াতে নতুন এক ফিচারের পরীক্ষা করতে দেখা গেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সোশ্যাল প্লাটফর্মটিকে।

নয়া এ ফিচারটি দেখা যায় পোস্টের নিচেই। লাইক-কমেন্ট-শেয়ার বাটনের ওপরে সংযুক্ত ফিচারটিতে ব্যবহারকারীর প্রতি প্রশ্ন থাকছে এমন যে, ‘Does this post contain hate speech?’ অর্থাৎ ‘এই পোস্টে ঘৃণা ছড়ানোর আধেয় আছে কি?’ প্রশ্নের পর থাকছে ‘Yes’ ও ‘No’ (হ্যাঁ ও না) দু’টি বাটন।

আগে থেকেই ফেসবুকে পোস্টের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করার পদ্ধতি চালু আছে। কিন্তু রিপোর্ট করতে খানিকটা সময় ব্যয় করতে হয়। পোস্টের বিরুদ্ধে রিপোর্ট গেলে সাধারণত ওই পোস্ট সরিয়ে নেওয়া হয়ে থাকে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই পদ্ধতিটিই আরও সহজ করতে চাইছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

অল্প কিছু সময়ের জন্য এই ‘হেট স্পিচ’ ফিচারটি নিরীক্ষা করা হচ্ছিল বিধায় বিস্তারিত জানা যায়নি। ‘হ্যাঁ’ ও ‘না’ বাটনে ক্লিক করার পর আরও কোনো অপশন আসে কি-না, তাও বোঝা যায়নি।

তবে এই ‘হেট স্পিচ’ ফিচার একেবারে সহজ মনে হচ্ছে বিধায় বিরুদ্ধমত অবদমিত হওয়ার আশঙ্কাও করা হচ্ছে। যেহেতু এটি ব্যবহারকারীদের বহুলপ্রতীক্ষিত ‘ডিজলাইক’ বাটন নয়, সেহেতু অনেকে অপছন্দের ব্যাপারটিই সরাসরি ‘হেট স্পিচ’ অপশনে গিয়ে ‘ইয়েস’ চেপে বসতে পারেন। যাতে নির্বিচারে পোস্ট সরিয়ে নেওয়ার মতো দায়ে পড়ে যেতে পারে কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি এ ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা নিয়ে ফেসবুকের তরফ থেকে বলা হয়, ভুয়া খবর ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে সন্দেহজনক কনটেন্টগুলো কম দেখানো হচ্ছে। নতুন পরিকল্পনা অনুযায়ী, ব্যবহারকারীদের চাহিদা অনুযায়ী নিউজ ফিডে খবর দেখানোর ক্ষেত্রে সেন্সরশিপ এবং সংবেদনশীলতার একটি সামঞ্জস্য রাখার চেষ্টা চলছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: