মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

উপকূলের মাছ ধরার নৌকা দিয়ে ইয়াবা আসছে চট্টগ্রামে:পুলিশ সুপার



নিজস্ব প্রতিবেদক::কক্সবাজারের টেকনাফে চেকপোষ্ট বসানোর ফলে চট্টগ্রামের উপকূলীয় অঞ্চল বাঁশখালী,আনোয়ারা,মীরসরাইয়ের নদী পথে মাছ ধরার নৌকাকে ব্যবহার করে মায়ানমার থেকে ইয়াবা আনা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা।

বুধবার(১৯ অক্টোবর) চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে জেলার মাসিক সমন্বয় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক সামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে চট্টগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, আগে টেকনাফ দিয়ে মায়ানমার থেকে ইয়াবা আনতো ইয়াবা ব্যবসায়ীরা।টেকনাফে চেকপোষ্ট বসানোর ফলে সুবিধা করতে না পেরে তারা এখন উপকূলীয় অঞ্চল আনোয়ারা,বাঁশখালী,মীরসরাইয়ের নদী ঘাট দিয়ে মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলার দিয়ে ইয়াবা আনছে।

পুলিশ সুপার আরো বলেন,স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের অধীনে ১০টি অধিদপ্তর আছে।ইয়াবাসহ সকল মাদকদ্রব্য বন্ধ করার দায়িত্ব পড়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপর। তারপরও জেলা পুলিশ আলাদা একটা অভিযানিক টিম দিয়ে অভিযান চালিয়ে নির্মূল করার চেষ্টা করছে।

তিনি আরো বলেন,সাতকানিয়াসহ বিভিন্ন উপজেলার নারীরা ইয়াবা ব্যবসার সাথে সংযুক্ত হচ্ছে। ইয়াবা ব্যবসা লাভজনক হওয়ার ফলে নারীরা এসব নিষিদ্ধ ব্যবসায় জড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এসপি আরো বলেন,২৩ অক্টোবর থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে। হাটহাজারীর রাস্তা তেমন উন্নত না।লক্ষাধিক পরীক্ষার্থী ও অভিভাবক এই রাস্তা দিয়ে আসা-যাওয়া করবে। ২৩-২৫ ডিসেম্বর হাটহাজারীতে ইজতেমা ও ফটিকছড়িতে মাইজভান্ডার ওরশ শুরু হবে একই সময়।হাটহাজারীর রাস্তা দিয়ে এত লোকের যাতায়াত কষ্টসাধ্য হবে বিধায় এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান।

সভায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের মেট্রো উপ-পরিচালক আলী আসলাম চৌধুরী বলেন,সীমিত সংখ্যক জনবল নিয়ে সাধ্য মত কাজ করি ।জেলায় মাত্র তিনজন কর্মকর্তা দিয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন করি। সবাই মিলে সহায়তা না করলে সমাজ থেকে মাদক নির্মূল সম্ভব না ।

তিনি আরো বলেন,একজন মা অভিযোগ করেন তার ছেলে এমবিবিএস পাস করে বিসিএস হয়েছে।কিন্তু ছেলে মাকদাসক্ত।
বিসিএস পাশ করার পর কিভাবে একটি ছেলে মাদকের প্রতি ঝুঁকে পড়ল এ নিয়ে আক্ষেপ করেন আলী আসলাম।

সভায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ-পরিচালক খোরশেদ আলম,চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) রেজাউল মাসুদ,ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা.অজয় কুমার,জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহাব উদ্দিন,উপজেলার চেয়ারম্যান ও নির্বাহী অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: