শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
২২ আগস্ট থেকে গ্রুপ চ্যাট বন্ধ করে দিচ্ছে ফেসবুক  » «   রাজনীতিতে আসছেন প্রধানমন্ত্রী কন্যা পুতুল?  » «   সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি হাজী নিহত, আহত ১৭  » «   ফের পাক-ভারত সীমান্তে গোলাগুলি  » «   গভীর রাতে স্ত্রীকে মেডিকেলে নেয়ার ভয়াবহ বর্ণনা দিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  » «   মিরপুরে বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুড়েছে ৬০০ ঘর, ধ্বংসস্তুপে চলছে অনুসন্ধান  » «   বেফাঁস মন্তব্যে ফাঁসলেন জাকির নায়েক, হারাচ্ছেন নাগরিকত্ব  » «   কাশ্মীরে খুলছে স্কুল-কলেজ, তুলে নেওয়া হচ্ছে সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা  » «   কাশ্মীর সঙ্কট নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক সম্পন্ন, নাখোশ ভারত  » «   শিক্ষামন্ত্রীর স্বামীকে দেখতে গেলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   চীনে টাইফুন লেকিমার আঘাত: নিহত ২৮, ঘরছাড়া ১০ লাখ  » «   কেমন হবে এবার কাশ্মিরীদের ঈদ?  » «   কেন ঈদ যাত্রায় ভোগান্তি, কারণ বললেন সেতুমন্ত্রী  » «   কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী  » «   সড়ক-রেল-নৌ: সব যাত্রা পথেই ভোগান্তি  » «  

ইসলামের বিজয়: হেফাজত



138618_1নিউজ ডেস্ক: রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে ইসলাম বাতিল চেয়ে করা রিট আবেদন খারিজ হওয়াকে ইসলাম ধর্মের বিজয় বলে আখ্যা দিয়েছে কওমী মাদ্রাসা ভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম।
সোমবার বিচারপতি নাইমা হায়দারের নেতৃত্বে হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ রিটটি রুলসহ খারিজ করে দেন।
আদালতের এই রায়ের পর এক সুপ্রিম কোর্ট অঙ্গনে এক প্রতিক্রিয়ায় একথা বলেন হেফাজতের ঢাকা মহানগরের যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুল করিম কাশেমী।
রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের বিরুদ্ধে রিটের প্রতিবাদে আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিল মতিঝিলের শাপলা চত্বরে ২০১৩ সালের মে মাসে সমাবেশ থেকে বিতাড়িত হওয়ার পর কার্যত ঝিমিয়ে পড়া অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম।
কাশেমী বলেন, ‘বাংলাদেশের ৯৮ শতাংশ লোক ইসলাম ধর্মের অনুসারী। এমন দেশে ইসলামকে রাষ্ট্রধর্ম না রাখা অবাঞ্চনীয়। কোনো অপশক্তি পারবে না ইসলামকে প্রতিহত করতে।’
‘আদালত ন্যায়বিচার করেছেন। আদালত মুসলমানদের ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে রিট খারিজের যে রায় দিয়েছেন, এতে আমাদের বাংলাদেশে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে ইসলাম ধর্মের বিজয় হয়েছে।’
কাশেমী বলেন, ‘আদালতের মাধ্যমে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে ইসলামকে সম্মান দেখানো হয়েছে। একইসঙ্গে মিডিয়া এবং সকল মুসলিমকে ধন্যবাদ যারা এই আন্দোলনে আমাদের সঙ্গে ছিলেন।’
তবে এই রায়ের পর সব ধর্মের লোক মিলেমিশে থাকবে এমন প্রত্যাশাও করেছেন ফজলুল করিম কাশেমী।
তিনি বলেন, ‘আজকের রায়ের পর পূর্বের মতো সকল অহিংস পথ পরিহার করে আমরা সামাজিক ও পারিবারিকভাবে সব ধর্মের লোক মিলেমিশে বসবাস করবো বলে প্রত্যাশা করছি।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: