রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল, সম্পাদক বাবু  » «   চার দিনের সফরে আজ আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   শ্রীলঙ্কায় মুসলিম ভোটারদের বহনকারী বাসে বন্দুকধারীদের হামলা  » «   আজ পহেলা অগ্রহায়ণ: নানা আয়োজনে চলছে ‘নবান্ন উৎসব’  » «   মোরালেস সমর্থকদের ওপর পুলিশের এলোপাতাড়ি গুলি, নিহত ৫  » «   স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   যাত্রীর ফেলে যাওয়া ২০ লাখ টাকা ফেরত দিলেন রিকশাচালক  » «   দেশে ফিরে নির্যাতনের আরও ভয়াবহ তথ্য দিলেন সুমি  » «   বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে এবার ক্ষেপেছে শিখরা  » «   নিখোঁজ মেডিকেল শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি, নির্বিকার প্রশাসন  » «   স্টেশন মাস্টারের ভুলে ৮ বগি লাইনচ্যুত, উত্তরবঙ্গে রেল-সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন  » «   বিন লাদেনকে পাকিস্তানের হিরো বললেন পারভেজ মোশাররফ  » «   রোববার প্রাথমিক-ইবতেদায়ী সমাপনী শুরু, পরীক্ষার্থী কমেছে  » «   ধড়পাকড়ে স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন, ফিরলেন আরও ২১৫ কর্মী  » «  

ইমরানের ফোন, মাহাথিরের পর এরদোয়ানও কাশ্মীরিদের পাশে



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর উদ্ভূত পরিস্থিতির বিষয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান পাকিস্তানের অবস্থানের প্রতি দৃঢ় সমর্থন জানিয়েছেন। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে গতকাল সোমবার টেলিফোনে কথা বলে এরদোয়ান তার দেশ কাশ্মীরি জনগণের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে বলে ঘোষণা দেন। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউন পাকিস্তানের।

জানা গেছে, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ভারত কেড়ে নেয়ার পর মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতাদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলছেন ইমরান। এরই অংশ হিসেবে কাশ্মীরের সাম্প্রতিক পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে এরদোগানকে ইমরান খান কাশ্মীর বিষয়ে ভারতের একতরফা সিদ্ধান্তের ফলে এ অঞ্চলে নিরাপত্তা ও শান্তি বিঘ্নিত হবে বলে জানান। যা শুনে উদ্বেগ প্রকাশ করেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। এ ইস্যুতে তুরস্কের দৃঢ় সমর্থন পাকিস্তানের পাশে থাকবে বলে জানায় পাকিস্তান পাকিস্তানি গণমাধ্যম।

এর আগে, ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীর ভেঙে দুই টুকরো করার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। সোমবার ভারতের রাজ্যসভার অধিবেশনে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল সংক্রান্ত প্রস্তাব পাস হয়ে যাওয়ার পর মাহাথির এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

এদিকে, কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ করেছে ভারত সরকার। সেই সঙ্গে স্বায়ত্তশাসিত এই রাজ্যটিকে ভেঙে কেন্দ্রীয় সরকার শাসিত জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ নামের দুই রাজ্য তৈরি করা হয়েছে। অবশ্য রাজ্যের মর্যাদাও হারাতে পারে কাশ্মীর। এই ৩৭০ অনুচ্ছেদের ওপর ভিত্তি করেই ভারতের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল কাশ্মীর।

এতে জম্মু ও কাশ্মীরকে অন্য যে কোনো ভারতীয় রাজ্যের চেয়ে বেশি স্বায়ত্তশাসন ভোগ করার অধিকার দেওয়া হয়েছিল। তাই সরকারি এই পদক্ষেপের পর সেখানে তীব্র প্রতিক্রিয়ার আশঙ্কা হচ্ছে। গতকাল এর সূচনা দেখা গেছে ভারতের আইনসভা লোকসভায়। হয়েছে তীব্র বাকবিতণ্ডা ও হট্টগোল। অবশ্য ক্ষমতাসীন বিজেপি দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে মিষ্টি বিতরণ করেছে কর্মীদের মাঝে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: