রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে শিক্ষককে হত্যার হুমকি  » «   স্কুলের ঘন্টা বাজালেন রুহানি!  » «   উল্টো পথে প্রতিমন্ত্রীর গাড়ি: অর্ধশত যানবাহনকে জরিমানা  » «   বিএনপি কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা  » «   সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ: চেয়ারম্যানসহ আসামি ৭  » «   ‘আলোচনার মাধ্যমে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান সম্ভব’  » «   রোহিঙ্গাদের গণধর্ষণের প্রমাণ পেয়েছে জাতিসংঘ  » «   অবশেষে রিয়ালের স্বস্তির জয়  » «   সিরিজ বাঁচিয়ে রাখতে চায় অস্ট্রেলিয়া  » «   বালাগঞ্জে গ্রাম আদালত বিষয়ক প্রশিক্ষন সম্পন্ন  » «   তখনও প্রসবকালীন রক্ত ঝরছে তার শরীর থেকে  » «   টাঙ্গাইলে চলছে ভোটগ্রহণ  » «   কিশোরী স্কুলছাত্রীদের যৌনদাসী বানিয়ে রাখেন কিম!  » «   বুদ্ধি কমিয়ে দিচ্ছে যে খাবার  » «   আইফোনের তুলনায় পাঁচ গুণ সস্তা টাইগাফোন  » «  

ইনু সবাইকে চোর বানিয়েছেন, তাহলে উনিও খেয়েছেন : শেখ হাসিনা



1469438582নিউজ ডেস্ক:: দরিদ্র জনগোষ্ঠীর টিআর ও কাবিখা প্রকল্পে চুরির জন্য সাংসদসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধি ও আমলাদের দায়ী করে দেয়া তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, উনি (ইনু) সবাইকে চোর বানিয়েছেন, সবাই খেলে তাহলে উনিও খেয়েছেন।

২৫ জুলাই সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এক অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকসূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গতকাল রোববার দুপুরে ঢাকায় পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনে এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো এমপি, আমি জানি টিআর কীভাবে চুরি হয়। সরকার ৩০০ টন দেয়, এর মধ্যে এমপি সাহেব আগে দেড়শ’ টন চুরি করে নেয়।

তারপর অন্যরা ভাগ করে। সব এমপি করে না। তবে এমপিরা করেন।’

ওই সংবাদ প্রকাশিত হলে এ নিয়ে রাজনীতিকসহ বিভিন্ন মহলে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

পরে রাতে তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর বক্তব্যে টিআর-কাবিখা প্রসঙ্গে প্রকাশিত সংবাদের বিষয়ে তার দৃষ্টিকটু হলে, এ বিষয়ে মন্ত্রী কোনো বিভ্রান্তি বা ভুল বোঝাবুঝি হলে বা কেউ এতে দুঃখ পেয়ে থাকলে তা অনভিপ্রেত বলে জানান এবং সেক্ষেত্রে নিজেও দুঃখ প্রকাশ করেন।’

বিবৃতিতে ইনু বলেন, ‌‌‘আমি নিজে একজন সংসদ সদস্য হিসেবে সংসদ সদস্যবৃন্দসহ সব জনপ্রতিনিধিকে আন্তরিকভাবে সম্মান করি এবং সেই সম্মান অক্ষুণ্ন রয়েছে। এরপরও কেউ যদি অনভিপ্রেতভাবে দুঃখ পেয়ে থাকেন, সেজন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।’

সোমবারের বৈঠকে মন্ত্রিপরিষদের এক সদস্য গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা এক ছটাকও টিআর-কাবিখার গম খাই না। এমন কথা উনি বলতে পারেন না।

জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক সম্পর্কে বলতে গিয়ে ওই কথা বেখেয়ালে বলে ফেলেছি।

মন্ত্রিপরিষদের আরেক সদস্য বলেন, কিসের বেখেয়াল? আপনি এটা বুঝে-শুনেই বলেছেন। এ কথা শুনে ‘সরি’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

বৈঠকে সরকার-প্রধান মন্ত্রীদের বলেন, আপনারা দুর্নীতির কথা বললে বিএনপির আমলের দুর্নীতির কথা বলবেন। এখন দুর্নীতির কথা বললে তা তো সরকারের বিরুদ্ধেই যায়।

সরকারের অর্জনের কথা তুলে ধরতে মন্ত্রীদের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: