সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

ইতালিতে ধর্ষকদের হাত থেকে তরুণীকে বাঁচালেন এক বাংলাদেশি



প্রবাস ডেস্ক:: রাত সাড়ে ১১টার দিকে ইতালির ফ্লোরেন্সের শহরের এক রাস্তার উপর দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেনে এক তরুণী। এ সময় ২৫ জন মাতাল মিলে ওই তরুণীকে ঘিরে ধরেন। ওই তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের চেষ্টা করেন তারা। আর সেই দৃশ্য বাংলাদেশি এক ফুল বিক্রেতা দেখতে পেয়ে একাই ওই তরুণীকে ২৫ জন মাতালের হাত থেকে রক্ষা করেন।
প্রবাসী বাংলাদেশি ওই ফুল বিক্রেতার নাম আলমগীর হোসেন বলে জানা গেছে। বাংলাদেশি এই লোকের সাহসিকতার কথা এখন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলোতে ফলাও করে প্রচার করা হচ্ছে।
জানা গেছে, গিয়া গুরানত্তা নামের ওই তরুণী একজন ফটোগ্রাফার। ওই তরুণী জানান, হঠাৎ ২৫ জনের মতো মাতাল ব্যক্তি রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় তাকে ঘিরে ধরেন। তারা ওই তরুণীকে তাদের সাথে খারাপ কাজ করার প্রস্তাব দেয়। ওই তরুণী প্রস্তাবে রাজি না হলে। মাতাল লোকগুলো খেপে যায়। তারা ওই তরুণীকে গালিগালাজ ও অশ্লীল কথা বলতে থাকেন। এ সময় ধর্ষণ করার জন্য ওই তরুণীকে তারা নির্জন স্থানে নিয়ে যেতে চেষ্টা করে। ঠিক ওই সময়ই বাংলাদেশি ফুল বিক্রেতা আলমগীর হোসেন দেখতে পান তাদেরকে।
আলমগীর হোসেন তাদের সামনে এগিয়ে যান এবং পরিস্থিতি বুঝতে পেরে ওই মাতালের দলকে ধাওয়া করেন। আর একাই ওই তরুণীকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করেন।
গিয়া গুরানত্তাকে এরপর একটি নিরাপদ স্থানে নিয়ে যান এবং তার বন্ধুতের ফোন দেন। পরে বন্ধুরা তাকে এসে নিয়ে যায়।
ওই তরুণী সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে জানান, কোনো স্বার্থ ছাড়াই ওই লোক আমাকে বাঁচিয়েছেন। আলমগীর হোসেন একজন নিষ্পাপ ব্যাক্তি। সে কোনো দিন আলমগীর হোসেনকে ভুলতে পারবেন না বলেও জানান।
জানা গেছে, ওই তরুণীকে তাদের বন্ধুর হাতে তুলে দেওয়ার সময় আলমগীর ওই তরুণীকে একটি ফুলও উপহার দেন। বাংলাদেশি প্রবাসী আলমগীর ফুল বিক্রেতা হিসেবে ২০০৫ সাল থেকে ইতালিতে বসবাস করছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: