রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চ্যারিটেবল মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল  » «   সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা; শিশু ও নারীসহ নিহত ৪৩  » «   থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা  » «   দু’দিনের মধ্যেই খাশোগি হত্যার পরিপূর্ণ তদন্ত রিপোর্ট : ট্রাম্প  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক  » «   বাড়িতে বাবার লাশ, পিএসসি পরীক্ষা দিতে গেল মেয়ে  » «   প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «  

ইতালিতে অবৈধ অনুপ্রবেশ : ২০ হাজার বাংলাদেশির ভাগ্য অনিশ্চিত



প্রবাস ডেস্ক::ইতালিতে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে। গত কয়েক দিনে দুই হাজারেরও বেশি অভিবাসী ইতালিতে প্রবেশ করতে গিয়ে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে। তাদের বেশিরভাগই সাগরপথে দেশটিতে প্রবেশ করতে গিয়েছিলেন। ভূমধ্যসাগরের বিশাল নৌপথ পাড়ি দিতে গিয়ে ইতোমধ্যে বাংলাদেশিসহ অনেক মানুষের মূত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

ইতালির নতুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি সম্প্রতি সিরিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী আহমেদ মেইটিংয়ের সাথে অবৈধ অভিবাসী প্রবেশ ঠেকাতে বৈঠক করেছেন। পরে দুই নেতা এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এই সমস্যা সমাধানে ঐকমত্য পোষণ করেন। তারা এই বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যান্য দেশের সঙ্গেও আলোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এদিকে মাত্তেও সালভিনি আগেই ঘোষণা করেছেন ইতালিতে অবৈধ সাড়ে ছয় লক্ষ অভিবাসীকে নিজ দেশে ফেরত পাঠাবেন। সেখানে প্রায় বিশ হাজার বাংলাদেশির ভাগ্যও জড়িত। এ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন বাংলাদেশিরা।

ইতোমধ্যে ইতালির সিসিলিতে প্রবেশের চেষ্টা করা লিবিয়া থেকে আগত প্রায় দুই হাজার শরনার্থী বহনকারী জাহাজকে ফেরত পাঠিয়েছে। তার মধ্যে ৬৩০ জন অবৈধ অভিবাসীকে পরে স্পেন সরকার গ্রহণ করলেও বাকি জাহাজগুলো লিবিয়াতে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: