শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সালমানের প্রথম ভালো লাগা কে?  » «   দুই যুবকের সঙ্গে ২০ বছর বয়সী তরুণী, এরপর…  » «   হাওয়া ভবন থেকে মানুষকে স্বস্তি দিতে ১৪ দলীয় জোট : খালিদ মাহমুদ  » «   ফখরুলের বক্তব্যের সমালোচনা করে যা বললেন ওবায়দুল কাদের  » «   ভালবেসে বিয়ে, কিভাবে এতটা নির্মম হয় রনিরা?  » «   প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১০ মিনিট সময় চান ড. কামাল  » «   ভেরিফায়েড হলো মোস্তাফা জব্বারের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট  » «   গুজব ছড়ানোর অভিযোগ : রিমান্ডে সেই গৃহবধূ ফারিয়া  » «   সাবেক সেনা কর্মকর্তাকে উদ্ধারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা  » «   সব ব্যাংকে সতর্কতা জারি!  » «   গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গৃহবধূ আটক  » «   ‘গর্বিত বাঙালির বিজয়ের দুই প্রতিচ্ছবি’  » «   ২৬ বছর পরে শাহরুখ!  » «   পাকিস্তানে নিষিদ্ধ হতে পারে টুইটার  » «   সানি লিওন এবার ক্রিকেটার!  » «  

‘আ’লীগ থেকে তাজউদ্দীন পরিবারকে সরিয়ে ফেলার চক্রান্ত চলছে’



নিউজ ডেস্ক::মুক্তিযুদ্ধকালীন সরকারের অস্থায়ী প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের সর্বকনিষ্ঠ সন্তান ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ অভিযোগ করেছেন, ‘দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, একটি কুচক্রী মহল আওয়ামী লীগের রাজনীতি থেকে তাজউদ্দীন পরিবারকে সরিয়ে ফেলতে চায়।’

রবিবার (১০ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেজে এক স্ট্যাটাসে তিনি এমন অভিযোগ করেন। তিনি লিখেন, ‘আওয়ামী রাজনীতি থেকে তাজউদ্দীন পরিবারকে সরিয়ে ফেলতে চায় এই কুচক্রী মহল। এদের প্রভাব দলের ভেতরে ও প্রশাসনের সর্বস্তরে।’

ফেসবুক পোস্টে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাজউদ্দীন আহমদের সাদাকালো একটি ছবিও শেয়ার করেছেন সোহেল তাজ। স্ট্যাটাসের শেষ দিকে নিজের জেলা কাপাসিয়ার বাসিন্দাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি লিখেন, ‘আপনারা কাপাসিয়ায় কোনও অপরাজনীতি হতে দেবেন না।’

এর আগে, বৃহস্পতিবার (৩১ মে) ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে দেশের তরুণদের জন্য কিছু করার ঘোষণা দেন তিনি। এতে ঈদের পর কিছু করার আভাস দিলেও কী করতে চান তা প্রকাশ করেননি তিনি।

দীর্ঘদিন রাজনীতির বাইরে থাকা তাজ দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। রাজনীতি-বিমুখ এই মানুষটিকে রাজনীতিতে ফিরে আসারই অনুরোধ করে আসছেন তার ভক্তরা।

২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব নিলেও ওই বছরের ৩১ মে তিনি মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন। পদত্যাগপত্রে সোহেল তাজ বলেছিলেন, ‘মন্ত্রীর দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে না পারায় আমি স্বজ্ঞানে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি।’

সেই পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়ায় ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে একটি চিঠি দেন সোহেল তাজ। পাশাপাশি তিনি পদত্যাগ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারিরও আবেদন জানান। সেই সময় থেকে তার ব্যক্তিগত হিসাবে পাঠানো বেতন-ভাতার যাবতীয় অর্থ ফেরত নেওয়ারও অনুরোধ জানানো হয় ওই চিঠিতে। এরপর ২০১২ সালের ২৩ এপ্রিলে সংসদ থেকে পদত্যাগ করেন সোহেল তাজ।

মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগের পর সোহেল তাজের আবারও মন্ত্রিসভা এবং দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে ফিরে আসা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে নানা ধরণের গুঞ্জন শোনা গেছে। তবে সেগুলো শেষ পর্যন্ত আর বাস্তব হয়নি।

২০০৮ সালে গাজীপুর-৪ (কাপাসিয়া) আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন সোহেল তাজ।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: