বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

‘আ’লীগের আমলে হিন্দুদের সম্পত্তি জবর-দখল হয়’



7. riponনিউজ ডেস্ক::
বিএনপির মুখপাত্র ও আন্তর্জাতি বিষয়ক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেছেন, প্রচার করা হয়, বিএনপি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকলে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ নির্যাতন ভোগ করে। কিন্তু প্রমাণিত হয়েছে, বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে হিন্দুদের সম্পত্তি জবর-দখল হয়। মানুষ নির্যাতনের শিকার হয়।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, বর্তমানেও শাসকদলের লোকদের হাতে বিশেষ করে মন্ত্রী-এমপিদের হাতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তাদের সম্পত্তি দখল হচ্ছে। মেয়েরাও ধর্ষণের শিকার হচ্ছেন।

রিপন বলেন, পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বৃহস্পতিবার বলেছে; দেশের বিভিন্ন স্থানে শাসক দলের লোকেরা তাদের সম্পত্তি দখল করছে। তাদের মেয়েদের ধর্ষণ করছে। তারা প্রধানমন্ত্রীর বেয়াই স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর নাম উল্লেখ করে বলেছে, ফরিদপুরে হিন্দু জমিদার বাড়ির দেয়াল ভেঙে জায়গা দখল করা হচ্ছে। ঠাকুরগাঁওয়ের সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম হিন্দু সম্প্রদায়ের ভূমি দখল করেছেন।

তিনি জানান, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বারবার বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে কোনো মানুষ ভারতে অভিবাসী হয় না। কারণ তুলনামূলকভাবে আমাদের দেশ ভারতের চেয়ে শান্তির দেশ। এখানে ধর্মের নামে হানাহানি হয় না।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, সরকার কোনো কিছুই সামাল দিতে পারছে না। দেশের কোনো শ্রেণির মানুষই এদের প্রতি খুশি নয়। শুধু খুশি ৫ শতাংশ মানুষ। যারা এ সরকারকে ভোট দিয়েছে। বাকি ৯৫ শতাংশ মানুষই এ সরকারকে আর দেখতে চায় না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, ধর্ম সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার প্রমুখ।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: