শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবলিক পরীক্ষার সব ফি দেবে সরকার  » «   বাচ্চারা সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ইভিএম, দাবি লালুপুত্রের  » «   আগামীকাল প্রাথমিকের প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা  » «   পরাজিত হওয়া মানেই হার নয়: মমতা  » «   কুলাউড়ায় ওজন বাড়াতে চিংড়িতে বিষাক্ত জেলি!  » «   শতবর্ষী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ: ‘আমাকে ছেড়ে দাও, আমি রোজা রাখছি’  » «   কিছুটা সময় লাগলেও ইসরাইল-আমেরিকার পতন অনিবার্য: ধর্মীয় নেতা  » «   মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি: সিলেটে ওয়েল ফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   একক দল হিসেবেই ম্যাজিক ফিগারে মোদির বিজেপি!  » «   পারিবারিক কলহে সৎ মাকে কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে  » «   রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   পবিত্র কোরআন কেটে ভেতরে ইয়াবা পাচার, ৩ রোহিঙ্গা আটক  » «   গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের চার জন নিহত  » «   খালেদার কারামুক্তি, এবারও ‘হ্যান্ডল’ করতে পারেনি বিএনপি!  » «   বালিশ মাসুদের খোলা চিঠি  » «  

আমিরাতে ডাকাতির দায়ে আট প্রবাসীর মৃত্যুদণ্ড



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সশস্ত্র ডাকাতিতে অভিযুক্ত আট প্রবাসীকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজা শহরের ফৌজদারি অপরাধ আদালত। মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত এই প্রবাসীদের বিরুদ্ধে শারজার একটি মানি এক্সচেঞ্জ সেন্টারে ডাকাতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে।

দুবাইভিত্তিক আরবি ভাষার দৈনিক এমারেত আল ইয়ুম বলছে, অভিযুক্ত ওই প্রবাসীরা মানি এক্সচেঞ্জ সেন্টারে সশস্ত্র অবস্থায় লুটপাট চালায়। তারা সেখানে প্রবেশ করে সাধারণ জনগণের ওপর হামলা ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মারধরের পর ভয়-ভীতি দেখিয়ে টাকা লুট করে চলে যায়।

এই মামলায় অপর এক অভিযুক্তকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। লুটের টাকার ভাগ নিজের কাছে রেখে দেয়ায় সাজা শেষে তাকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আমিরাতের এই আদালত। তবে অভিযুক্ত এই ব্যক্তি তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেছেন, অভিযুক্তদের একজনের ভাই লুটের ৬০ হাজার আমিরাতি দিরহাম নিজ দেশের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেছিলেন।

তবে মানি এক্সচেঞ্জ সেন্টারে সশস্ত্র ডাকাতির এই অভিযোগ দণ্ডপ্রাপ্তদের কয়েকজন স্বীকার করলেও বাকিরা প্রত্যাখ্যান করেছেন। পুলিশের তদন্ত বলছে, মানি এক্সচেঞ্জ সেন্টারের ভিডিও ফুটেজ দেখে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের পর তাদের আঙুলের ছাপ পরীক্ষা করা হয়েছে।

গ্রেফতারের পর পুলিশের কাছে দেয়া স্বীকারোক্তিতে শারজার মানি এক্সচেঞ্জ সেন্টারে সশস্ত্র ডাকাতির অভিযোগ স্বীকার করেছেন তারা। অভিযুক্তদের একজন লুটের কিছু টাকা আদালতের কাছে ফেরত দিয়েছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: