শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে দুই পুরস্কার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ডিজিটাল পাঠ্যবই শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের জন্য সহায়ক হবে: শিক্ষামন্ত্রী  » «   কাল পবিত্র আশুরা, তাজিয়া মিছিলে ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ  » «   জেল থেকে বাসায় ফিরলেন নওয়াজ-মরিয়ম  » «   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার সহায়তা  » «   রান্নাঘরের গ্রিল কেটে শাবির ছাত্রী হলে চুরি,নিরাপত্তাহীনতায় ছাত্রীরা  » «   এখনও জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ : যুক্তরাষ্ট্র  » «   মোদিকে ইমরানের চিঠি: পুনরায় শান্তি আলোচনা শুরুর তাগিদ  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতেই বিচার চলবে: আদালত  » «   ফুটপাতের খাবার বিক্রেতা থেকে সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি!  » «   বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «  

‘আমার আর চাকরির দরকার নেই’



নিউজ ডেস্ক::তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের মামলায় গ্রেফতার কোটা আন্দোলনের নেতা মোহাম্মদ রাশেদ খাঁনের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গত সোমবার (২ জুলাই) আদালতের রায়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে রাশেদের মা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মা সালেহা বেগম বলেন, ‘শনিবার ছাত্রলীগের ১৫-২০ জন নেতা বাড়িতে গিয়ে হুমকি দিয়ে এসেছে। আমি অন্যের বাড়িতে কাজ করে ছেলেকে লেখাপড়া শিখিয়েছি। আমার সেই ছেলে এখন জেলে। ও ছাড়া পেলে বাড়ি নিয়ে যাব। আমার আর চাকরির দরকার নেই।’

এ সময় আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন রাশেদের বাবা নবাই বিশ্বাস, বোন সোনিয়া ও রূপালি এবং স্ত্রী রাবেয়া আলো।

সরকারি চাকরিতে কোটা ৫৬ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবিতে গত এপ্রিলে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে আন্দোলনের মুখে ১১ এপ্রিল কোটা থাকবে না বলে ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর ২ মে এবং সব শেষ ২৭ জুন সংসদে একই কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, এ নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি কাজ করছে। এতদিন ধরে চলে আসা পদ্ধতিটি কীভাবে বাদ দেয়া যায়, সেটি নিয়ে কাজ চলছে। তারা প্রতিবেদন দিলেই সিদ্ধান্ত হবে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে কোটা আন্দোলনের নেতা রাশেদ খান গত ২৭ জুন ফেসবুকে একটি লাইভ ভিডিও পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লাইভে এসে প্রায় সাড়ে ১৮ মিনিট বক্তব্য রাখেন। বক্তব্যে রাশেদ বারবার ছাত্রদেরকে বাড়ি থেকে ক্যাম্পাসে ফিরে এসে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানান।

এমনকি সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণাকে তার নাম উল্লেখ না করেই একাধিকবার প্রতারণা বলে উল্লেখ করেন। বলেন, ‘মনে হচ্ছে এই দেশ তার বাপের দেশ।’

পরে এই ভিডিও বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করা হয়েছে এমন অভিযোগ করে শাহবাগ থানায় রাশেদের বিরুদ্ধে মামলা করেন ছাত্রলীগ নেতা আল নাহিয়ান খান জয়। আর সেই মামলাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সোমবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে রাশেদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। পরে ঢাকার মহানগর হাকিম রায়হান উল ইসলাম পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার (১ জুলাই) মিরপুর-১৪ নম্বর থেকে কোটা সংস্কার আন্দোলনের তিন নেতাকে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার সদস্যরা তুলে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন। ওই তিন নেতা হলেন- ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান, যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজ খান ও যুগ্ম আহ্বায়ক সুমন কবীর।

পরে ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান জানান, শাহাবাগ থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলায় রাশেদ খানকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: