বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তিন সিটিতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী যারা  » «   ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি: চিদম্বরমের সময় অমিত, অমিতের সময় চিদম্বরম গ্রেপ্তার  » «   অক্টোবর থেকে মোবাইল অ্যাপে মিলবে বিমানের টিকিট  » «   আগামীকাল জুমার নামাজের পর গণবিক্ষোভের ডাক কাশ্মীরিদের  » «   হবিগঞ্জে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে নবজাতক চুরি, নারী আটক  » «   কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশির মৃত্যু, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ  » «   ভীতি কাটাতে চা বিস্কুট খেতে খেতে ভাইভা দেবেন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা  » «   তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   রাস্তার পাশে চা বানাচ্ছেন মমতা! ভিডিও ভাইরাল  » «   ঋণের টাকায় ভারত থেকে অস্ত্র কিনবে বাংলাদেশ  » «   কানাইঘাটে মৃত্যুর পাঁচ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন  » «   কাশ্মীরে ফের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন, গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে আজ  » «   পুলিশের ছেলে বিশ্বের এক নম্বর ডন  » «   জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা  » «  

আপিলকারীরা ন্যায়বিচার পাবেন: ইসি



নিউজ ডেস্ক:: নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, যারা নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন ফিরে পেতে আবেদন করেছেন, তাদের ব্যাপারে আমরা সজাগ আছি। যেহেতু এটি একটি আইনি প্রক্রিয়া। আমরা আইন অনুযায়ী তাদেরকে ন্যায়বিচারের ব্যবস্থা করবো। আমি বিশ্বাস করি আপিলকারীরা ন্যায়বিচার পাবেন।

মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থীরা আপিল করতে এলে অভিযোগ বুথের সামনে তাদেরকে তিনি একথা বলেন।আপিল নিষ্পত্তির বিষয়ে ‘ব্যক্তিগত কোনো অভিমত আমার নেই’ জানিয়ে এই কমিশনার বলেন, ‘আমরা অবশ্যই ন্যায় বিচার প্রত্যাশী। তবে আমরা যা কিছুই করব, আইনানুগভাবে আমাদের করতে হবে। কারো প্রতি পক্ষপাতিত্ব আমরা অবশ্যই দেখাব না। প্রতিটি কেসের মেরিট আমরা দেখব এবং আমি মনে করি,নির্বাচন কমিশন সব ব্যাপারেই এখন নিরেপক্ষ ভূমিকা রাখবে।’

উদ্দেশ্যমূলকভাবে অনেকের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে, প্রার্থীদের এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘এটার ব্যাপারে এককভাবে এই মুহূর্তে আমার কোনো বক্তব্য দেওয়ার কথা না। তাদের যে অভিযোগ এখানে করে তো লাভ হবে না। শুনানিতে তারা তাদের অভিযোগগুলো উপস্থাপন করতে পারবেন। তখন আমরা তাদের অভিযোগ সম্পর্কে অভিহিত হবো।’

আপনারা নির্বাচনী পরিবেশ কতটা দেখতে পাচ্ছেন-সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘এই ধরনের প্রশ্নের উত্তর আজকের এইখানে দেওয়ার অবস্থায় নেই আমি। কারণ হলো নির্বাচনী পরিবেশ আছে কি নেই, এটা যদি দুই পক্ষই বলে তো আমরা এখন কী বলব এই ব্যাপারে। এটা পরবর্তী সময়ে আলাপ আলোচনা করে আমরা দেখতে পারি, নির্বাচনী পরিবেশ আছে কি নেই। এই মুহূর্তে আছে কিংবা নেই এর কোনোটা বলার জন্য আমি প্রস্তুত নই।’

যে সব কারণ দেখিয়ে প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে, ইসিতে এসে ওই প্রার্থী কিছুটা ফ্লেক্সিবিলিটি পাবে কি না-এমন প্রশ্নের উত্তরে কমিশনার বলেন, ‘এই বিষয়টা তো আমি বলেছি, যাদের যা কিছুই অভিযোগ আছে, তারা সেই অভিযোগগুলো এইখানে লিপিবদ্ধ করে আমাদের এইখানে দেবেন, তারপরে তাদের এই প্রত্যোকটি অভিযোগের বিষয়ে শুনানি করব। শুনানি করে আমরা এই ব্যাপারে ব্যবস্থা নিব।’

মাহাবুব তালুকদার আরও বলেন, ‘আমার কথা হলো এইগুলো অভিযোগের প্রশ্নের উত্তর আমি এই মুহূর্তে দিতে পারি না। এই মুহূর্তে আমি এইটার জন্য প্রস্তুত না। আমি কেবল এখানে দেখতে আাসছি যারা অভিযোগপত্র আমাদের এইখানে জমা দিতে এসেছে, তাদের কোনো অভিযোগ আছে কি না জমা দেওয়ার ব্যাপারে কোনো অসুবিধা হচ্ছে কি না। আমি সেগুলো কেবল দেখতে এসেছি।’

ন্যায় বিচারের পক্ষে ইসি স্বচ্ছ থাকবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি কখনো এই কথা বলব না, ন্যায় বিচারের পক্ষে স্বচ্ছ থাকব না। এটা কখনো বলব না। ন্যায় বিচারের ব্যাপারটা তো আপেক্ষিক। এটার কোনো উত্তর এই মুহূর্তে আমার পক্ষে দেওয়া সম্ভব না। একটা ন্যায়বিচার একটা পর্যায়ে গিয়ে তিনি হয়তো দণ্ডপ্রাপ্ত হন, পরবর্তী পর্যায়ে দেখা গেল তার দণ্ডপ্রাপ্ত মওকুফ করা হলো। সুতরাং এটা তো একটা আপেক্ষিক বিষয়। কোনটা ন্যায়বিচার আর কোনটা ন্যায়বিচার নয়, এটার তো আমি বিচারক নই।’

তার আগে নির্বাচন কমিশনে সচিবের সঙ্গে বৈঠক শেষে ১৪ দলের নেতা ও বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি বিভিন্ন ব্লেইম গেইম খেলছে।

তিনি আরও বলেন, ব্লেইম গেইমের মধ্য দিয়ে তারা নির্বাচন কমিশনকে প্রতিপক্ষ করতে যাচ্ছে। যার মধ্য দিয়ে তাদের বিভিন্ন রকমের যে প্লান বা ডিজাইন আছে, ভবিষ্যতে সেই ডিজাইনগুলোকে তারা বাস্তবে রূপ দিতে চাচ্ছে। এজন্য আমরা বলেছি নির্বাচন কমিশন যাতে সতর্ক থাকে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়েছেন ৭৮৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিলকারী। এরমধ্যে গতকাল পর্যন্ত ৮২ জন নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে যাচাই-বাছাইয়ে নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হয়েছেন ২ হাজার ২৭৯ জন। এর মধ্যে ঢাকা অঞ্চলের ছয় জেলায় দাখিল হওয়া ৪৭৭টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে ১১৬টি বাতিল হয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত সারা দেশে ৩০০ আসনে ৩ হাজার ৫৬জন মনোনয়ন দাখিল করেন।

এর মধ্যে রংপুর বিভাগে ৩৬১জন, রাজশাহী বিভাগে ৩৫৩জন, খুলনা বিভাগে ৩৫১জন, বরিশাল বিভাগে ১৮২জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ২৩৬জন, ঢাকা বিভাগে ৭০৮জন, সিলেট বিভাগে ১৭৭ এবং চট্টগ্রাম বিভাগে ৬৮৮টি মনোনয়ন দাখিল করেন। সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন পড়েছে ঢাকা-৮ আসনে ২২টি। মাগুরা-২ আসনে সর্বনিম্ন ৪জন মনোনয়ন দাখিল করেছিল। তফসিল অনুসারে, আগামী ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহার এবং প্রতীক বরাদ্দ ১০ ডিসেম্বর। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: