বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «   কাবা শরীফের ভেতরে প্রবেশের সুযোগ পেলেন ইমরান  » «   মিয়ানমারে নিলামে উঠছে সুচির ভাস্কর্য  » «   এক দিনেই মিলবে পাসপোর্ট  » «   ওসমানী বিমানবন্দরে বিমানে তল্লাশি : ৪০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার, চোরাচালানী আটক  » «   কেউ বলতে পারবে না, কারো গলা টিপে ধরেছি: প্রধানমন্ত্রী  » «   সৌদি থেকে ফিরলেন ৪২ নারী গৃহকর্মী  » «   সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে আরও ২০ কোটি টাকা অনুদান দেবেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ইয়েমেনে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ৫২ লাখ শিশু  » «   ‘২৩ হাজার পোস্টমর্টেম বনাম মানসিক সঙ্কট’  » «  

আপনার রেট কত?



নিউজ ডেস্ক::গণজাগরণ মঞ্চের ‘স্লোগান-কন্যা’ খ্যাত লাকী আক্তার। গ্রামের বাড়ি ফেনী। লাকী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে সম্মান শেষ করেছেন। সম্প্রতি ফেসবুকে একটি পোস্ট করে আলোচনায় এসেছেন তিনি। বিডি২৪লাইভ ডট কমের পাঠকদের জন্য লাকীর সেই স্ট্যাটাস হুবুহু তুলে ধরা হল-

গতকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাকে মুহুর্মুহু ব্যক্তিগত আক্রমণ করা হচ্ছে। ফেসবুকের দেয়াল আর ইনবক্স ভেসে যাচ্ছে কুৎসিত মন্তব্যে। ব্যক্তিগত ভাবে এ বিষয় নিয়ে আমি মোটেও উদ্বিগ্ন নই। কারণ এই আক্রমণ আমার জন্য নতুন কিছু নয়। অতীতেও আমি এইসব মোকাবিলা করেছি, এখনো করছি আর ভবিষ্যতেও মোকাবেলার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত আছি।

আমার শুভাকাঙ্ক্ষীরা শাহবাগ আন্দোলনের সময় থেকেই আমার কমেন্ট অপশন বন্ধ রাখার কথা বলছেন। সেসময় আমার চরিত্র হননের নানান পর্যায় আমাকে মোকাবেলা করতে হয়। এমনকি আমার ফোন নাম্বার গণহারে পর্ণ সাইটে আপলোড করা হয়েছিল। হাজার হাজার ফোন কলের অপর প্রান্ত থেকে ভেসে এসেছিল একটাই প্রশ্ন:

আপনার রেট কত?

সেসময়েও আমি আমার এই নাম্বার পরিবর্তন করিনি। শুধুমাত্র সেই বিরুদ্ধ পরিবেশ মোকাবেলা করে আমার রাজনৈতিক কর্তব্য এবং সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা পালন করে গেছি।

বর্তমান পরিস্থিতিতে আমার পর্যালোচনা হচ্ছে আন্দোলন সংগ্রামে আন্দোলনকারীদের নানাভাবেই নাজেহাল করা হয়। আন্দোলনকারী যদি নারী হন তাহলে তো কথাই নেই। তার চরিত্র হনন করাটা একটা আন্দোলন দমানোর হাতিয়ার হয়। একজন নারী আন্দোলন সংগ্রাম করতে আসলে তাকে দ্বিগুণ প্রস্তুতি নিয়ে লড়াই করতে হয়।

আমিসহ যেসকল নারীরা প্রতিনিয়ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ধরণের উন্মত্ত আক্রমণের শিকার হয়েছেন তাদেরকে আমি অভিবাদন জানাই। এই সমাজ এবং রাষ্ট্রের ধর্ষকামী চরিত্র আক্রমণকারীরা নিজেরাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রমাণ দিচ্ছেন। তাদের খোলশ নিজেরাই উন্মুক্ত করছেন। এতে বিচলিত হওয়ার কিছু নেই। আরো হাজার হাজার নারীকে সামাজিক মাধ্যম আর রাজপথে থেকেই এর মোকাবেলা করতে হবে।

এই ধরণের ব্যক্তিগত আক্রমণ থেকে মুক্তির উপায় কী?
উত্তর: লড়াই!

#কোটা_সংস্কার_চাই

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: