মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

‘আত্মহত্যা করিনি, আমায় হত্যা করা হয়েছে’



নিউজ ডেস্ক::বগুড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন পাবলিক স্কুল ও কলেজের পাঁচতলা থেকে লাফিয়ে পড়া নবম শ্রেণির ছাত্র রাইয়ান রাব্বী তাসিন (১৬) মারা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ ঘটনার পর তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। পরে রাতে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফজলুল হক দাবি করেছেন, পারিবারিক হতাশা থেকে তাসিন আত্মহত্যার জন্য ঝাঁপ দেয়। তাসিনের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে লেখা রয়েছে, ‘আমি আত্মহত্যা করিনি, আমায় হত্যা করা হয়েছে’।

ছিলিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবদুল আজিজ মন্ডল বলেন, ‘তাসিন ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ক্যামেলিয়া শাখায় (রোল-২৫৬) পড়তো। স্কুলের সিসিটিভি ফুটেজে তাসিনের ঝাঁপ দেওয়ার দৃশ্য পাওয়া গেছে।’ ময়নাতদন্তের জন্য তাসিনের লাশ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফজলুল হক তাসিনের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে দাবি করলেও তার পরিবার থেকে এ ব্যাপারে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তার এক সহপাঠী বলেছেন, সৎমায়ের সংসারে অশান্তি ও ভালোবাসা দিবসে প্রেমিকা কথা না বলায় সে বাঁচার ইচ্ছা হারিয়ে ফেলে।

সহপাঠীরা আরো জানায়, তার বাবার সংসার ছেড়ে মা চলে যাওয়ার পর সৎমায়ের সঙ্গে তাসিনের সম্পর্ক ভালো ছিল না। এছাড়া এক মেয়ের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। সম্প্রতি ওই মেয়ে তাকে এড়িয়ে চলতো। ভালোবাসা দিবসে সে কোনও কথা বলেনি। এসব কারণে তাসিন ফেসবুকে তার হতাশা প্রকাশ করে।

স্ট্যাটাসে সে লিখেছে- ‘আমি আত্মহত্যা করিনি, আমায় হত্যা করা হয়েছে’, ‘ব্যথাপূর্ণ জীবন দেওয়ায় আল্লাহকে ধন্যবাদ’, ‘সকলকে বিদায়’। তার স্যাটাসের নিচে রোদেলা আনজুম মালিহা নামের একজন লিখেছেন, সে শুধু যে তার প্রেমিকার জন্য মারা গেছে এমন টা ভুল ধারণা।এখানে সে বলেছে যে তার ফ্যামিলির লোকজনরাও চায় যে সে নিজেই নিজেকে হত্যা করুক।এর দ্বারা বুঝা যাচ্ছে যে সে তার ফ্যামিলির প্রবলেমের জন্য এবং তার ভালোবাসার মানুষকে না পাওয়ার কষ্টে সুইসাইড করেছে।

স্থানীয়রা জানান, রাইয়ান রাব্বী তাসিনের বাবা বগুড়া শহরের শিববাটি এলাকার ব্যবসায়ী জুয়েল হোসেন সোহাগ নিউমার্কেটে কসমেটিকস ব্যবসায়ী। দাম্পত্য কলহে ৮-১০ বছর আগে স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিন নিপার সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। নিপার ছেলে রাইয়ান রাব্বী তাসিন তার বাবার কাছে থেকে যায়। জুয়েল হোসেন সোহাগ পরে দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

বগুড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন পাবলিক স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ এটিএম মোস্তফা কামাল বৃহস্পতিবার সদর থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। ডায়েরিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, রাইয়ান রাব্বী তাসিন ক্লাসে প্রায় সময় আনমনা থাকতো। সহপাঠীদের সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলতো না। পারিবারিক কলহের কারণে মাঝে মাঝে ঘুমের ওষুধ ও নেশাজাতীয় পানীয় পান করতো। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে স্কুল ছুটি হয়ে যায়। ২টা ২২ মিনিটের দিকে তাসিন প্রতিষ্ঠানের পশ্চিম পাশের পাঁচতলা ভবনের ছাদে ওঠে। সেখান থেকে লাফ দিয়ে মাঠের মধ্যে পড়ে যায়। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের আইসিইউ বিভাগের চিকিৎসক নাঈম আহমেদ দিপু জানান, তাসিনের মাথায় আঘাত, কোমর ও দুই হাত ভাঙা এবং বাম পাশ থেঁতলানো ছিল। পর্যবেক্ষণের জন্য তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল।’

বগুড়া সদর থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, তাসিনের বাবা জুয়েল হোসেন থানায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা করেছেন। তাতে লিখেছেন অজ্ঞাত করণে তার ছেলে আত্মহত্যা করেছে।

ওসি আরও জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের রিপোর্টে লিখেছেন, পড়ে গিয়ে (ফল ডাউন) মারা গেছে। এছাড়া ভিডিও ফুটেজে তার আত্মহত্যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাই ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের জন্য তার পরিবারকে দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: