বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শাহজালাল বিমানবন্দরে ৩১৮ কার্টন সিগারেট জব্দ  » «   ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচন স্থগিত  » «   ৬ মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের নির্দেশ  » «   আপত্তি ছিল, আপত্তি থাকুক : অর্থমন্ত্রী  » «   ত্রিদেশীয় সিরিজটস হেরে ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়ে  » «   ‘আ’লীগের সাথে নির্বাচনে গেলে জামায়াত ভালো  » «   সালমান-শাবনূরের ‘আনন্দ অশ্রু’ নিয়ে এবার সাইমন-মাহি  » «   সতর্ক অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীআজও মাঠে নামবেন আইভী, থাকতে পারেন শামীম ওসমানও  » «   পাবনায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ে কমিউনিটি ক্লিনিক-এ কমর্রত কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডারদের অবস্থান কর্মসূচী পালন  » «   আল-আকসা সংস্কারে ইসরাইলের নিষেধাজ্ঞা!  » «   ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের মানববন্ধন ১৮ জানুয়ারি  » «   এক সপ্তাহেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ পরীক্ষার্থী বাপ্পীর  » «   উজানের দেশ সমূহ হতে বাংলাদেশে মোট ৫৭ টি নদী প্রবাহিত  » «   নরসিংদীতে অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার  » «   এ দেশে কোনো দস্যুতা চলবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «  

আইনজীবীর দাবি ‘খালেদা জিয়া সম্পূর্ণ খালাস পাবেন’



নিউজ ডেস্ক::বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আনা কোনো অভিযোগই দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) প্রমাণ করতে পারেনি। ফৌজদারি মামলায় অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে না পারলে এর সুবিধা পাবেন আসামি। কাজেই খালেদা জিয়া সম্পূর্ণরূপে খালাস পাবেন।

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নবম দিনের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার এ দাবি করেন।

একই দিনে যুক্তি উপস্থাপন শেষে পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন পুরান ঢাকার বকশীবাজাবের বিশেষ আদালত ৫-এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান।

যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে খালেদা জিয়ার আইনজীবী বলেন, এ মামলায় সাক্ষ্য-তথ্যপ্রমাণে ম্যাডামকে (খালেদা) দোষী সাব্যস্ত করতে পারেনি। আর এই ট্রাস্টের সঙ্গে উনার কোনো সম্পর্ক নেই। উনি সম্পূর্ণরূপে খালাস পাবেন। এ সময় তিনি আদালতকে উদ্দেশ্য করে বলেন, খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার চান, ন্যায়বিচার করুন।

‘খালেদা জিয়া এতিমের টাকা চুরি করে খেয়েছেন’- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের অন্য নেতাদের এমন বক্তব্য আদালতের কাজে হস্তক্ষেপ কিনা, প্রশ্ন রেখে বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন বিএনপি নেত্রীর আইনজীবী।

আজ ১১ জানুয়ারি বাংলাদেশের ইতিহাসের ‘কালো দিবস’ আখ্যা দিয়ে ২০০৭ সালের জরুরি অবস্থার কথা তুলে ধরেন খালেদা জিয়ার এ আইনজীবী।

তিনি বলেন, ওই সময় সম্পূর্ণ রাজনৈতিক কারণে ও খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবন বাধাগ্রস্ত করতে মামলা দেওয়া হয়েছে। এখন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৬টি মামলা আছে।
নবম দিনে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনে অংশ নিতে আজ সকাল ১০টা ২০ মিনিটে গুলশানের বাসভবন থেকে আদালতের উদ্দেশে রওনা হন খালেদা জিয়া। বেলা ১১টা ৫ মিনিটে আদালতে পৌঁছান তিনি।

এর আগে গতকাল বুধবার (১০ জানুয়ারি) অষ্টম দিনের মতো এই দুর্নীতি মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন খালেদার আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী।

গত বছরের ৩০ নভেম্বর দুর্নীতির এ দুই মামলায় খালেদা জিয়া হাজির না হলে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন আদালত।

এরও আগে চলতি বছরের ১২ অক্টোবর বিদেশে থাকাকালে খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল। বর্তমানে তিনি অস্থায়ী জামিনে আছেন। প্রতি ধার্য তারিখেই আদালতে হাজিরা দিচ্ছেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রাজধানীর রমনা থানায় প্রথম মামলাটি করা হয়।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট রাজধানীর তেজগাঁও থানায় একটি মামলা করে দুদক।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: