সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শুধুমাত্র আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা যায় না: আইনমন্ত্রী  » «   জামায়াতের সবারই রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ  » «   সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জা‌নি‌য়ে মোদিকে শেখ হাসিনার বার্তা  » «   গুগলে ‘টয়লেট পেপার’ লিখলে আসছে পাকিস্তানের পতাকা  » «   পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট হ্যাক করেছে ভারত?  » «   সাত বছরে ৬৩ বার পেছালো সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন  » «   তিন দিনের সীমান্ত সম্মেলনে বিএসএফ প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে  » «   বড় রাজনৈতিক দল অংশ না নেওয়া ইসির জন্য হতাশাজনক: সিইসি  » «   পাকিস্তানকে কী করতে পারবে ভারত?  » «   বঙ্গবীর ওসমানীর জন্ম-মৃত্যুবার্ষিকী রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের দাবি  » «   দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সা’দপন্থীদের ইজতেমা শুরু  » «   মোদির স্বপ্ন কখনোই পূরণ হবে না, পাল্টা হুঙ্কার পাকিস্তানের  » «   চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার খবরটি ‘টোটালি ফলস’  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী  » «   জামায়াত নতুন নামে পুরনো চরিত্রে ফিরে আসে কিনা তা ভাবনার বিষয়  » «  

আইনগত অনুমোদন পেলেই সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার: সিইসি



নিউজ ডেস্ক:: আইনগত অনুমোদন পেলেই আগামী সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।শনিবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে টিওটি প্রশিক্ষণ এবং ইভিএম ব্যবহার বিষয়ে কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সিইসি নূরুল হুদা বলেন,ইভিএম নিয়ে মানুষের মাঝে সন্দেহ থাকবে, প্রশ্ন থাকবে।আমরা সেগুলো দূর করার চেষ্টা করবো।পরিপূর্ণভাবে ইভিএম ব্যবহার করবো।কোনো ধরনের ত্রুটি থাকলে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না।তিনি আরো বলেন,ইভিএম অতিরিক্তভাবে চাপিয়ে দেওয়া যাবে না। নিখুঁতভাবে যতটুকু ব্যবহার করা যাবে ততটুকুই ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

ইভিএমের আইনিগত অনুমতি প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, স্বীকৃতি পেলেই এটি ব্যবহার করা হবে।এই যন্ত্র ব্যবহার করলে ভোট গ্রহণ সহজ হবে,কষ্ট কমে যাবে,ভোট গণনা সহজ হবে।ভোট কারচুপি হবে না।

রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে ইভিএম সম্পর্কে ভালোভাবে জানার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন,জানার পর মন্তব্য করলে ভালো হয়।আমাদের অবশ্যই আধুনিক প্রযুক্তির দিকে ধাবিত হতে হবে।নির্বাচনের ম্যানুয়াল পদ্ধতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে।সিইসি তার বক্তব্যে আরো জানান, ২০১৮ সালের শেষে অথবা ২০১৯ সালের শুরুতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ মোখলেসুর রহমান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: