রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মোহামেডানসহ মতিঝিলে চার ক্লাবে অভিযান  » «   তাহিরপুরে ১০টি গাঁজার বালিশ উদ্ধার  » «   ফ্রান্সে মসজিদে গাড়ি হামলা  » «   সদলবলে মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদক  » «   মুসলিম যাত্রী থাকায় ফ্লাইট বাতিল করল আমেরিকান এয়ারলাইনস  » «   মধ্যরাতে বনানীতে শাবি ভিসিপুত্রের কাণ্ড!  » «   সিলেট বিএনপিতে শোডাউনের প্রস্তুতি  » «   ‘ভূতের আড্ডায়’ অভিযান, বাতি জ্বালাতেই তরুণ-তরুণীর অপ্রীতিকর দৃশ্য  » «   মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন, প্রধান শিক্ষকসহ গ্রেপ্তার ৩  » «   টেকনাফে ‘গোলাগুলিতে’ রোহিঙ্গা স্বামী-স্ত্রী নিহত  » «   প্রাথমিকের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন গণশিক্ষা সচিব  » «   সাত বডিগার্ডসহ জি কে শামীমকে গুলশান থানায় হস্তান্তর  » «   মালদ্বীপে স্থায়ী জমি পেলো বাংলাদেশ  » «   শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে পদত্যাগ করলেন সহকারী প্রক্টর  » «   তাহরির স্কয়ারসহ মিসরজুড়ে একনায়ক সিসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ  » «  

অভিবাসী প্রশ্নে ইউরোপকে আরও মানবিক হতে বলল জাতিসংঘ



2000নিউজ ডেস্ক :: লিবিয়া উপকূলে দুইবারে ৫২ ও ২০০ এবং অস্ট্রিয়ার লরিতে ৭১ অভিবাসীর মরদেহ উদ্ধারের পর নড়ে চড়ে বসেছে ইউরোপের দেশগুলো। মানব পাচারের অভিযোগে ১০জনকে আটক করেছে ইতালির পুলিশ। আর অস্ট্রিয়ার লরিতে মরদেহ পাবার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে হাঙ্গেরিতে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে সেদেশের পুলিশ। আর অভিবাসী ইস্যুতে ইউরোপকে আরও মানবিক হবার অনুরোধ জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন।
শুক্রবার ইতালির পুলিশ দশজনকে আটক করে। তাদের বিরদ্ধে অবৈধ মানবপাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে। আর অষ্ট্রিয়ার পুলিশ হাঙ্গেরিতে ৩জনের আটক হবার কথা নিশ্চিত করলেও হাঙ্গেরির তরফে জানানো হয়েছে, এ অভিযোগে তাদের দেশে ৪জন কারাগারে আছে।
ইউরোপের সাম্প্রতিক অভিবাসন সঙ্কটের পর জাতিসংঘের তরফে বলা হয়েছে, ইউরোপে পালিয়ে অাসাদের মৃত্যু ঠেকাতে এখনো ‘অনেক কিছু’ করার বাকি আছে। গেলো কয়েকদিনে ইউরোপে পালিয়ে আসতে গিয়ে শতাধিক অভিবাসী নিহত হয়েছেন।
এ ভয়াবহ ঝুঁকিপূর্ণ অভিবাসন ঠেকাতে সংহতির ঢাক দিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন বলেছেন, একটি সামগ্রিক রাজনৈতিক ঐক্যমতই এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় সহায়ক হতে পারে। একই সাথে তিনি সংশ্লিষ্ট দেশগুলোকে অভিবাসীদের জন্য বৈধ ও নিরাপদ পথ উন্মুক্ত করারও আহবান জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার অষ্ট্রিয়ার একটি লরি/ট্রাকে ৭১ জন অভিবাসীর মৃতদেহ পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে এরা সবাই সিরিয়ার নাগরিক। আর লিবিয়া উপকূলে দুটি অভিবাসীবাহী নৌকাডুবিতে মারা গেছে অন্তত ২০০ জন অভিবাসী। এরা লিবিয়ার ত্রিপোলি থেকে ইটালির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন। এ ২০০ জনের প্রায় সবাই সিরিয়া এবং আফ্রিকার দেশগুলোর। নিহতদের মধ্যে আছে অন্তত ৮ জন বাংলাদেশিও। একদিন আগে বুধবার লিবিয়া উপকূলেই অন্তত ৫২ জন অভিবাসীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছিলো।

এ ধরণের মৃত্যু ভয়ঙ্কর এবং হুদয়বিদারক বলে উল্লেখ করেছেন বান কি মুন। তিনি বলেন, যারা এ ইউরোপে অভিবাসী হওয়ার আশায় এ ধরণের ভয়ঙ্কর আর বিপদসঙ্কুল পথ পাড়ি দিতে উদ্যত হয়, বা পাড়ি দেয় তারা অধিকাংশই সিরিয়া, ইরাক এবং আফগানিস্তান থেকে পালিয়ে আসা নাগরিক। আন্তর্জাকিতক সম্প্রদায়ের উচিত এসব দেশে দ্বন্দ্ব নিরসনে এমন কিছু করা যাতে এ মানুষগুলোর অন্তত এভাবে পালিয়ে আসতে না হয়।
ইউরাপের দেশগুলোকে আরো মানবিক হওয়ার আহবান জানিয়ে বান কি মুন বলেন, রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থনার আন্তর্জাতিক আইনগুলো দেশগুলোর আরও ভালোভাবে খতিয়ে দেখা উচিত। মানুষগুলো যে দেশ থেকে পালিয়ে আসে, তাদেরকে যেন আবার সে একই স্থানে ঠেলে না দেয়া হয়, সেজন্য দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব। তিনি জোর দিয়ে বলেন, এটা শুধু আন্তর্জাতিক আইনের বিষয় নয়, বিষয়টি মানবতারও। মানুষ হিসেবেও এ অসহায় মানুষগুলোর প্রতি আমাদের দায়িত্ব আছে।

যারা মানবপাচারের সাথে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধেও আরো কঠোর ব্যাবস্থার তাদিগও দিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। একই অবস্থান হোয়াইট হাউজেরও।

সাম্প্রতিক এসব ঘটনায় আবারো আলোচনায় ইউরোপে অভিবাসন সঙ্কট। ইউরোপের পাশের দেশগুলোতে বছরের পর বছর অশান্তি বিরাজ করায় কয়েকবছর ধরেই ইউরোপে অভিবাসন সঙ্কট তীব্র। ইউরোপের দেশগুলোও তীব্র অভিবাসনবিরোধী অবস্থান নিয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: