শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

অবশেষে জানা গেল স্টিভ রোডসের বিদায়ের কারণ



স্পোর্টস ডেস্ক:: বাংলাদেশ জাতীয় দলের সদ্য সাবেক কোচ স্টিভ রোডসের বিদায় নিয়ে মুখ খুললেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। জানালেন, বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স প্রশংসিত হলেও রোডসের কোচিংয়ের ধরন বাংলাদেশের সংস্কৃতির সঙ্গে যায় না বলেই পারস্পরিক সমঝোতায় তার অধ্যয় শেষ হয়েছে।

খেলা নিয়ে সিরিয়াস না হওয়াটাই স্টিভ রোডসের জন্য কাল হলো বলে মনে করেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, “উনি একজন ভালো মানুষ। একেক জনের একেক রকম কোচিং টেকনিক থাকে, স্টাইল থাকে। একেক জনের একেক রকম চিন্তাধারা থাকে। আমাদেরও একটা চিন্তাধারা আছে। এই দুটোর সমন্নয় না হওয়াটাই এখানে সমস্যা দেখছেন তিনি।

নাজমুল হাসান বলেন, “বিশ্বকাপের আগে অনুশীলন করার জন্য আয়োজন করলাম আমরা (লেস্টারশায়ারে)। সেখানে আমাদের অনুশীলন হলো না। ঐচ্ছিক করে দেয়াতে কেউ আসল না। এটা তো কালচারাল মিসম্যাচ। ও (রোডস) মনে করেছে, প্রত্যেক প্লেয়ার নিজ ইচ্ছাতেই অনুশীলন করবে। কিন্তু এটা তো আমাদের সঙ্গে মিলে না। ঐচ্ছিক, তাই কেউ আসনি। তাহলে তো লাভ হলো না, আমরা এতো টাকা খরচ করে আয়োজন করেছিলাম!”

ভারত-পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার আগে দীর্ঘ ছুটি ও বিশ্রাম দেওয়াটাকে টেনে আনেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, এর ফলে সবাই চলে গেছে বাইরে। ঘুরছে-ফিরছে। মনোযোগ তো এখানেই ভেঙে যায়। এই জিনিসগুলো, ওদের সংস্কৃতিতে হয়তো এগুলো ঠিক আছে। সমস্যা নেই। আমরা মনে করি, আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে এগুলো খাপ খায় না। এগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা সমঝোতায় সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা তাকে বাদ দেইনি।

বিশ্বকাপে একাদশ নির্বাচন নিয়ে মতনৈক্যও এখানে প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, “দল নির্বাচন বলবেন, (পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে) আমি আগের দিন সাড়ে ১১টা পর্যন্ত খেলোয়াড়দের সাথে। ওখানে একটা পরিকল্পনা হয়েছে। মুশফিকের হাতে স্লিং লাগানো। মুশফিক স্কোয়াডে ছিল না। মাশরাফি আগের দিন থেকেই নেই। অনুশীলন করেনি, প্ল্যানিং স্ট্র্যাটেজিতেও ছিল না। মাশরাফির খেলার কথা ছিল না। আমরা স্কোয়াড ঠিক করলাম। সব ঠিক হলো, কোচ ছিল সেখানে, সবাই ছিল। পরদিন মাঠে দেখি অন্য দল নেমেছে।”

“এগুলো তো এর আগে কখনও হয়নি। তাই এখানে অবশ্যই সমস্যা আছে। এটা নিয়ে কথা বলার কিছু নেই। আমরা মনে করেছি এটা দিয়ে হবে না। আমরা বলছি না, সে খারাপ। সে অনেক ভালো। আমরা যেভাবে চিন্তা করি, যেভাবে চলছে, এটা পুরোপুরি আলাদা।”

ক্রিকেটাররাও কোচকে নিয়ে আপত্তির কথা নানা সময়ে বলেছেন বিসিবি কর্তাদের জানিয়েছেন বলেও জানান বোর্ড সভাপতি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: