সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «   এ বছর থেকেই তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকছে না পরীক্ষা  » «   মসজিদে হামলা: ৮ দিনেও জ্ঞান ফেরেনি চার বছর বয়সী আলিনের  » «   মালিতে ১৩৪ মুসলিম আদিবাসীকে গুলি করে হত্যা  » «   ইভিএমএ ভোট দেই এক জায়গায়,আরেক জায়গায়  » «   ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে দু’পক্ষের গোলাগুলি, গুলিবিদ্ধ পুলিশ সদস্য  » «   আড়াই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৩টি!  » «   ব্রেক্সিট ঠেকাতে ফের গণভোট ও মে’র পদত্যাগ দাবিতে উত্তাল ব্রিটেন  » «   যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে চরম হেনস্থার শিকার ৯ বছরের বালিকা  » «   রাতেই ব্যালটে সিল মারায় নির্বাচন স্থগিত  » «   বাসচাপায় সিকৃবি ছাত্র হত্যা, চালক-হেলপার গ্রেফতার  » «   উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে  » «   লাগামহীনভাবে বাড়ছে দ্রব্যমূল্য: রমজানপূর্ব মজুদদারিতে কারসাজি  » «   সন্ত্রাস ও হিংসা মোকাবেলায় একসঙ্গে কাজ করতে পাকিস্তানকে আহ্বান মোদির  » «   সংসদে লুকিয়ে চকলেট খেয়ে ক্ষমা চাইলেন ট্রুডো!  » «  

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে মারল স্বামী!



নিউজ ডেস্ক::পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর দেয়া আগুনে সোনিয়া খাতুন (২৪) নামের এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ নিহত হয়েছে।

সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে এই নির্মম ঘটনাটি সংগঠিত হয়েছে।

বুধবার (৭ মার্চ) ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। সোনিয়া খাতুনের শরীরের প্রায় ৪০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল বলে জানান চিকিৎসকরা।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, এনায়েতপুর থানার রুপনাই চড়কাদহ গ্রামের তাঁত শ্রমিক আব্দুল খালেকের মেয়ে সোনিয়া খাতুনের সাথে গোপালপুর বাজার সংলগ্ন আরেক তাঁত শ্রমিক জাহাঙ্গীর হোসেনের ৫ বছর আগে প্রেম করে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে পারিবারিক অশান্তি চলছিল। এ নিয়ে বহুবার সালিশও হয়েছে।

কিন্তু হঠাৎ করে মঙ্গলবার (৬ মার্চ) দুপুরে জাহাঙ্গীর হোসেন কৌশলে তার ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সোনিয়াকে এনায়েতপুর সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার পাশের গলিতে এনে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়।

এ আগুনে পুরো মুখমণ্ডল থেকে শুরু করে কোমর পর্যন্ত ঝলসে যায়। তখন সোনিয়ার চিৎকারে এলাকার লোকজন ছুটে এসে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় খাজা ইউনুছ আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

পরে সোনিয়াকে থানা পুলিশের আর্থিক সহায়তায় সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (৭ মার্চ) ভোরে মারা যান তিনি।

নির্মম এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূর মা নুর নাহার বাদী হয়ে জাহাঙ্গীর হোসেনকে আসামি করে এনায়েতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

তিনি আরো বলেন, ‘সামান্য কিছু হলেই বিয়ের পর থেকে নির্যাতন অত্যাচার করতো আমার মেয়েকে। এ নিয়ে অসংখ্যবার দেন-দরবার হলেও জাহাঙ্গীর ভালো হয়নি। শেষ পর্যন্ত সে আমার নিরপরাধ অন্তঃসত্ত্বা মেয়েকে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে মেরেছে। আমরা ওদের ফাঁসি চাই।’

এ বিষয়ে এনায়েতপুর থানার ওসি রাশেদুল ইসলাম বিশ্বাস বলেন, হাসপাতালে আনবে সে সামর্থ্যও ছিল না পরিবারটির। আমরা নিজে থেকে আর্থিক সহায়তা করে অ্যাম্বুলেন্স ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। নিমর্মম এই ঘটনায় নিহতের স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেনকে আটকের জন্য জোর অভিযান চলছে। আটকের পর তাকে আইনানুগ উপর্যুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: